শহিদ-স্মৃতির আকাঙ্খিত কথা – নাসীর

কবিতা সাহিত্য
Spread the love

হয়তাে আমার মৃত্যুর পর জীবনের শেষ দিবা।

কোথাও দাঁড়াবে এসে,

আমার রক্তে অথবা বিশ্বাসে

নবপ্রজন্মেরা তােমরা আমার মৃতদেহটি

মিশিয়ে দিয়ে এই সবুজ দেশের ঘাসে।

আমার মৃত্যুর পর তরুণ কবিরা যারা মৃত্যুশকট

তুলে নিয়ে হাতে হাতে,

প্রবীণরা যারা এগিয়ে আসবে ওরা যেন নেয় কঁাধে,

তবেই তাে আমি পৌঁছে যাব সাথিদের সাথে সাথে

আরেক প্রজন্মের গর্ভধারিনীর নূতন কোনাে সত্যে।

স্মৃতির স্মারক বিদায়ের ক্ষণে ফুরিয়ে যাবে নাতাে,

আমার কাব্যরা আছে যারা মেরে সাথি ইহাদের সাথে থেকো

জাগবে অনেক প্রাণে জীবনের স্মৃতিগুলি,

বিছানায় শুয়ে শুয়ে রচিত কবিতাবলী।

ভিজিয়ে দেবে স্মরণ কথা অশ্রুসজল চোখে ?

বিরক্ত কথা যা কিছু আছে শুনে যেয়াে

| মেয়ে বিধবা স্ত্রীর মুখে।

কঁদবে অথবা কথায় গুঞ্জনে

“না গেলেই ভালাে হত” বলবে মনে মনে।

বন্ধুপ্রীতির কথা ছিল লড়াইয়ের পরামর্শ।

সত্যের তরে দিয়ে গিয়েছি; আপসের নয় সে আদর্শ

মিথ্যের সাথে; তােমরা যারা এখন আছাে

নূতন করে আগামীর দিনে দৃঢ়তার সাথে বাঁচো।

চিনল না যারা তাহাদের বলাে ওরা যেন থাকে সুখে,

ওদের নব প্রজাত সন্তানদের সত্যের সাথে ।

রাখে যেন চোখে চোখে।

তবেই নবপৃথিবীর জন্ম হবে; আমি দেখেছি যে ভিড়

আপিসে, বাজারে, গলিতে ও পথে।

অমানুষ এর মৃত্যুর দেশে ওরা দাঁড়াবেই হয়ে স্থির।

আশীষ দিয়ে আবার আসিব নূতন ছবিতে

| রূপান্তরের নূতন আশায়,

সেদিন আমার কাব্য লিখিব ফেব্রুয়ারির

| একুশের এই বাংলা ভাষায়।

নিবিড় করে ভাববে সেদিন রফিক-সালাম

সৌকত জব্বার সইফুলদের কথা

পথিক বিরল রাজপথে যাদের আত্মত্যাগের অমরাত্মা

গর্জে উঠল ভাষার তরে শাসক বর্বরতায়;

আমারও মৃত্যু যেন অভ্যর্থনা জানায়।

ঐ প্রতিনিধিদের আসন্ন কলরবে,

আর ফেব্রুয়ারির স্মরণি লেখাস্মৃতির উৎসবে।

সেখানে যদি বাঙালি জীবনে সংকেত কোনাে দেশহারাদের মারে

বিবাদ করােনা নূতন অতিথিরা, গ্রহণ করাে।

ভাষার আলােয় আলােকিত করে—

পরমাত্মীয় বাঙালিরে; রাত আর কতক্ষণ থাকে,

দেখবে সূর্য উঠবেই ব্রহ্মপুত্র মেঘনা অথবা বুড়িগঙ্গার বাঁকে।

সেখানে মিশ্র সুরে প্রতীক্ষা করে শরীর ও মনে নূতন সভ্যতা,

সবুজে রেঙেছে অঙ্গার জীবন, লুপ্ত হয়েছে রাজভবনের কথা।

চাওয়া পাওয়া নেই বিপ্লবী জীবনে, চাহিদা নেই ভিক্ষায়,

হিরন্ময় সত্যের আলােয় তৈরি হয়েছে শিক্ষায়।

তুমি কি চাওনি স্বনির্ভরতায় এগােবে মানুষ?

যেভাবে জাগল ভিয়েতনাম ও কিউবা-রুশ।

মুক্ত হল এই ভাষারই রক্তকলমে রক্তহাহাকারে হিন্দু মুসলমান,

যেন মহাচিনের মুনিশ মিছিলে লক্ষ কৃষকের আহ্বান

জাগিয়ে দিল আউশ গ্রামের বিজয়ী সাড়ম্বরে ।

স্বপ্নচোখের মুক্ত মনের মানুষগুলি গেঁয়াে পথে ঘুরে ঘুরে।

তুমিয়াে আসসা ব্যস্ত কলরােলে

কবিতা আঁকার চিত্রলেখায় বাংলা ভাষার কোলে

শহিদ স্মরণে,

হলে ভাঙে খােদাই স্মৃতি আমার মরণে।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *